Text size A A A
Color C C C C
পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

‘‘উপ-স্বাসহ্য কেন্দ্র’’ ১। বহিঃ বিভাগে আগত সকল রোগীকে রোগ অনুযায়ী চিকিৎসা প্রদান করা হয়। ২। বরাদ্দ সাপেক্ষে ও রোগ অনুযায়ী সকল রোগীকে ঔষধ প্রদান করা হয়। ৩। যে সকল রোগীদের চিকিৎসা প্রদান করা সম্ভব নয় তাদের উচ্চতর হাসপাতালে রেফার করা হয়। ৪। গর্ভবর্তী মহিলাদের এএনসি(প্রশব উওরচেকাপ )এবং পিএনসি (প্রশব পরবর্তী সেবা) প্রদান করা হয়। ৫। উপ - স্বাসহ্য কেন্দে আগত রোগী এবং রোগীদের সাথে আগত জন সাধারনকে আচার আচারন ও দৃষ্টি ভঈির পরিবর্তনের মাধ্যমে রোগ প্রতিরোধের পরার্মশ দেওয়া হয়। ‘‘কমিউনিটি ক্লিনিক’’ ১।কমিউনিটি ক্লিনিকে আগত সকল রোগীকে রোগ অনুযায়ী চিকিৎসা প্রদান করা হয় । ২।বরাদ্দ সাপেক্ষে সকল রোগীকে ঔষধ প্রদান করা হয়। ৩। পরিবার পরিকল্পনা বিষয়ক শিক্ষা এবং অসহায়ী পদ্ধতির উপকরণ বিতরণ এবং সহায়ী পদ্ধতির রোগীদেরকে উচ্চতর হাসপাতালে রেফার করা হয়। ৪।গর্ভবর্তী মহিলাদের এএনসি (প্রশব উরর চেকাপ) এবং পিএনসি (প্রশব পরবর্তী সেবা) প্রদান করা হয়। ৫। ইপিআইশিউিলঅনুযায়ী০-১বৎসরের শিশুদের৮টি রোগের প্রতিষেধক দেওয়া হয়। ৬। জম্ম মৃত্যু নিবন্ধিকরণ এবং উহা ইউনিয়ন পরিষদে প্রেরণ করা হয়। ৭। ক্লিনিকে আগত সেবা গ্রহনকারীদের জন্য স্বাসহ্য সম্মত জীবন যাপন, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা , স্যানিটেশন , সুষম খাদ্যার্ভাস, ক্রীমি প্রতিরোধ, বুকের দুধের সুফল, ডায়রিয়া প্রতিরোধ, পুষ্টি, আর্সেনিকোসিস সর্ম্পকে ব্যাপক গণ সচেতনা সৃষ্টি লক্ষ্যে বিসিসি (আচার আচারণ ও দৃষ্টি ভঈির পরিবর্তন বিষয়ে স্বাসহ্য শিক্ষা) প্রদান করা। ৮। দূর্যোগ ব্যবসহাপনার (মেডিক্যাল টিমের মাধ্যমে) চিকিৎসা প্রদান করা। ৯। আয়োডিনের স্বল্পতা এ আর আই (শ্বাসতমেএর সংক্রামন) যক্ষা (ডিওটিএস),কুষ্ঠ(এমডিটি), এএফ পি সর্নাক্তকরণ, পোলিও নিমূর্ল নিয়মএনের লক্ষ্যে সনাক্তকরণ ও চিকিৎসা প্রদান এবং প্রয়োজনে রেফার করা হয় । মাঠ পর্যায় ১। বাৎসরিক মাইক্রোপ্লান অনুযায়ী প্রতিটি পুরাতন ওয়ার্ডকে ৮টি সাব - ব্লকে ভাগ করে ২৮দিন অন্তর অন্তর আগের দিন আইপিসি (আন্তঃ ব্যক্তি যোগাযোগ ) ও পরের দিন শিডিউল অনুযায়ী ০ -১ বৎসরের সকল শিশুকে ৮টি রোগের বিরুদ্বে টিকা প্রদান করা হয়। ২।১৫ -৪৯ বৎসরের সকল মহিলাদের শিডিউল অনুযায়ী ৫ ডোজ টিটি টিকা প্রদান করা হয়। ৩। মাঠ পর্যায়ে এএফপি( হঠাৎ অবসা হয়ে যাওয়া) সকল রোগীকে এবং টিকা পরবর্তী) জটিলতা এইএফআই রোগী চিকিৎসা প্রদান করা হয়। নিরাপদ পানি, অথ্যাৎ জীবানু মুক্ত ও আর্সেনিক সহনীয় মাএায় পানি, আর্সেনোকোসিস রোগী সনাক্ত করণ। ভিটামিন "এ"এর অভাব জনীত রোগ প্রতিরোধ, আয়োডিনের সর্ম্পকে সচেতন,পুষ্টি সর্ম্পকে ব্যাপক গণ সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে বিসিসি (আচার আচরণ) ও দৃষ্টি ভঈির পরিবর্তন বিষয়ে স্বাসহ্য শিক্ষা প্রদান করা। দূর্যোগ ব্যবসহাপনায় মেডিক্যাল টিমের সদস্য হিসাবে চিকিৎসা প্রদান করা। পোলিও মুক্ত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে প্রতি বৎসর ২রাউন্ড জাতীয় টিকা দিবস পালন করা হয় ।